July 18, 2024, 11:16 am

পদ্মা সেতুর সমাপনী অনুষ্ঠান আজ, যোগ দেবেন প্রধানমন্ত্রী

জেড নিউজ ডেক্সঃ
  • Update Time : শুক্রবার, জুলাই ৫, ২০২৪
  • 34 Time View

পদ্মা সেতু নির্মাণ প্রকল্পের মেয়াদ শেষ হয়েছে ৩০ জুন। এ উপলক্ষে মুন্সীগঞ্জের মাওয়া প্রান্তে সমাপনী অনুষ্ঠান ও সুধী সমাবেশ হবে আজ  শুক্রবার। এতে প্রধান অতিথি হিসেবে অংশ নেবেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

২০২২ সালের ২৫ জুন পদ্মা সেতু আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করেন প্রধানমন্ত্রী। পরের দিন ২৬ জুন ভোর থেকে যান চলাচলের জন্য উন্মুক্ত করে দেওয়া হয় স্বপ্নের সেতু। ইতিমধ্যেই সেতু নির্মাণ প্রকল্পের মেয়াদ শেষ হয়েছে। এ উপলক্ষে শুক্রবার (৫ জুলাই) মুন্সীগঞ্জের লৌহজং উপজেলার মাওয়া উত্তর থানার সামনে হবে সমাপনী অনুষ্ঠান ও সুধী সমাবেশ। যোগ দেবেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। প্রধানমন্ত্রীর আগমন ঘিরে উৎসবের আমেজ বইছে পদ্মাপাড়ে।

স্থানীয় এলাকার বাসিন্দা শিশির রহমান জানান, পদ্মা সেতু প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা অনেক বাধা অতিক্রম করে পদ্মা সেতুর কাজ সমাপ্তি করেছে। তার দুই বছর পেরিয়ে গেলো। এই পদ্মা সেতু হস্তান্তর আগামীকাল প্রধানমন্ত্রী এখানে আসবেন। আগে যে ভোগান্তিতে পড়তে হত এখন তা হয় না। আগে ফেরি দিয়ে পদ্মাপাড়ি দিতাম যার কারণে অনেক সময় লেগে যেত কিন্তু এখন পদ্মা সেতু হওয়ায় আমাদের ভোগান্তিগুলো কমে গেছে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বাংলাদেশের টাকায় এই সফলতা এনেছে পদ্মা সেতু হয়েছে। আমরা মুন্সীগঞ্জবাসী হিসেবে গর্বিত। কাল সুধী সমাবেশে উপস্থিত থাকবেন তার জন্য আমাদের কাছে অনেক ভালো লাগছে। মুন্সীগঞ্জবাসীর পক্ষ থেকে জানাই আন্তরিক শুভেচ্ছা।

টঙ্গীবাড়ী উপজেলা পরিযদের নবনির্বাচিত চেয়ারম্যান ও সাবেক যুবলীগের সহ সভাপতি আরিফুর ইসলাম হালদার জানান, প্রধানমন্ত্রীকে স্বাগত জানাতে সকল প্রস্তুতি সম্পন্ন হয়েছে। দেশের সার্বিক খাতে অভূতপূর্ব উন্নয়নে দেশবাসীর কাছে আস্থা অর্জন করেছেন জননেত্রী শেখ হাসিনা। বিশেষ করে প্রধানমন্ত্রীর সাহসিকতায় নিমিত্ত হয়েছে পদ্মাসেতু। আর এই সেতুর কারণে বদলে গিয়েছে এখানকার মানুষের ভাগ্য। কৃতজ্ঞতা থেকেই দলীয় সভানেত্রীকে স্বাগত জানাতে আমরা সর্বোচ্চ করছি। তাকে অভিবাদন জানাতে সড়কের দুইপাশে কয়েকহাজার নেতাকর্মী তাকে শুভেচ্ছা জানাতে প্রস্তুত।

প্রধানমন্ত্রীর আগমনকে কেন্দ্র করে অনুষ্ঠানস্থল ও মাওয়া এলাকার আশেপাশে নিচ্ছিদ্র নিরাপত্তা ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন মুন্সীগঞ্জ পুলিশ সুপার।

মুন্সীগঞ্জ পুলিশ সুপার মোহাম্মদ আসলাম খান জানান, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার গর্বের পদ্মা সেতু প্রকল্পের সমাপনী অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখবেন। আমরা সেই জন্য ব্যাপক প্রস্তুতি নিয়েছি। আমাদের পক্ষ থেকে সাদা পোশাকে এবং ট্রাফিকসহ সব মিলিয়ে প্রায় ১৩ শত থেকে ১৪ শত ফোর্স মোতায়েন করা হয়েছে। এই অনুষ্ঠান উপলক্ষে নিশ্ছিদ্র নিরাপত্তার ব্যবস্থা গ্রহন করা হয়েছে। আশা করছি আমাদের এই গর্বের পদ্মা সেতু? যেটি আমাদের নিজস্ব অর্থায়নে হয়েছে প্রধানমন্ত্রী তার আনন্দবার্তা দিবেন এবং এই সেতুর মাধ্যমে সারা বিশ্বের কাছে আমাদের দেশের মান-মর্যাদা বৃদ্ধি পাবে। আইনশৃঙ্খলা বাহিনী সড়ক, ভেন্যু,রুফটপ এবং সাইডেও আইনশৃঙ্খলা বাহিনী রয়েছে। এছাড়া আমাদের বিভিন্ন গোয়েন্দা সংস্থা একসঙ্গে মিলেমিশে কাজ করছি। আশা করছি নিরাপত্তা থাকবে নিশ্ছিদ্র এবং কোনো ধরনের অসুবিধা হবে না বলে জানান তিনি।

সুধী সমাবেশের সকল প্রস্তুতি শেষ হয়েছে বলে জানিয়েছেন মুন্সীগঞ্জ জেলা প্রশাসক। শুক্রবার বিকেল সাড়ে ৪টায় সুধী সমাবেশে ভাষণ দেবেন প্রধানমন্ত্রী।মুন্সীগঞ্জ জেলা প্রশাসক মোঃ আবুজাফর রিপন জানান,আমাদের গণপ্রজাতন্ত্রী সরকারের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আগামীকাল এই পদ্মা সেতু এলাকা পরিদর্শন করবেন এবং একটি সুধী সমাবেশে যোগদান করবেন। সে উপলক্ষে আমরা প্রস্তুতি নিচ্ছি এবং এ প্রস্তুতি সন্তোষজনক। আপনারা জানেন আমাদের সবচেয়ে বড় পরিচয় স্বাধীনতা। আর স্বাধীনতার পরে যদি আমরা বলি সেটা হচ্ছে পদ্মা সেতু আরেকটি গৌরবের। যেটি আমাদের দেশের অর্থনৈতিক ও মানসিক সক্ষমতার একটি নতুন অধ্যায়ের সূচনা করেছে। প্রধানমন্ত্রীর হাত ধরে পদ্মা সেতু প্রকল্পটি সফলভাবে দু’বছর অতিক্রম করেছে। এই প্রকল্পটির সমাপনী অনুষ্ঠানে প্রধানমন্ত্রী আগামীকাল প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত হবেন। অনুষ্ঠানকে ঘিরে সার্বিক নিরাপত্তা ব্যবস্থা থেকে শুরু করে সমস্ত আয়োজন এখন পর্যন্ত সন্তোষজনক।

গত দুই বছরে সেতু দিয়ে এক কোটি ২৭ লাখ যানবাহন পারাপার হয়েছে। গত ২৯ জুন পর্যন্ত রাজস্ব আদায় হয়েছে এক হাজার ৬৬১ কোটি টাকা। সর্বপরি পদ্মা সেতু প্রকল্পে বরাদ্দকৃত ৩২ হাজার ৬০৭ কোটি টাকা থেকে চূড়ান্ত বিলে প্রায় দেড় হাজার কোটি টাকা কম খরচ হয়েছে।

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More News Of This Category