July 17, 2024, 5:43 pm

হতাশ আগৈলঝাড়ার জনবিচ্ছিন্ন নেতারা নৌকা প্রতীক না থাকায়।

Reporter Name
  • Update Time : বুধবার, জানুয়ারি ২৪, ২০২৪
  • 38 Time View

বি এম মনির হোসেন সিনিয়র স্টাফ রিপোর্টারঃ-

স্থানীয় সরকারের নির্বাচনকে সবার অংশ গ্রহনে শতভাগ গ্রহণযোগ্য করতে আসন্ন উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে আওয়ামী লীগের দলীয় প্রতীক নৌকা থাকছে না। থাকবে না দলীয় মনোনয়ন বা দলের কোন প্রার্থীর প্রতি নমনীয়তাও। দলের নীতি নির্ধারণী পর্যায়ের এমন সিদ্ধান্তে পাল্টে গেছে নির্বাচনী মাঠের চিত্র। এবার প্রার্থীদের নৌকায় চড়ে পার হওয়া নয়, পার হতে হবে নিজের অবস্থান আর কর্ম-দক্ষতা দিয়ে।আওয়ামী লীগের এমন সিদ্ধান্তকে সাধারণ ভোটাররা স্বাগত জানালেও চরম হতাশা বিরাজ করছে নৌকা পেলেই চেয়ারম্যান হওয়ার স্বপ্ন দেখা সম্ভাব্য প্রার্থীদের মধ্যে। ফলে এতোদিন যারা আওয়ামী লীগের মনোনয়ন পাবার জন্য লবিং ও তদবির করে আসছিলেন তাদের সংখ্যা কমে যেতে শুরু করেছে।
সদ্য সমাপ্ত দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের রেশ কাটতে না কাটতেই প্রচন্ড শীতের মাঝে দেশের অন্যান্য স্থানের মতো বরিশালের আগৈলঝাড়ার সর্বত্র বইতে শুরু করেছে উপজেলা নির্বাচনের হাওয়া। কে হচ্ছেন উপজেলা চেয়ারম্যান, ভাইস চেয়ারম্যান ও সংরক্ষিত ভাইস চেয়ারম্যান প্রার্থী তা নিয়ে পাড়া-মহল্লার চায়ের দোকান থেকে শুরু করে অফিস পাড়ায় চলছে ব্যাপক আলোচনা।থানা পুলিশের নির্ভরযোগ্য সূত্রে জানা গেছে, আগৈলঝাড়া উপজেলায় চেয়ারম্যান পদে সম্ভাব্য নয় জন আওয়ামী লীগ নেতার প্রার্থী হওয়ার কথা ছিল। হঠাৎ করে ২২জানুয়ারি নির্বাচনে নৌকা প্রতীক থাকছে না দলের এমন সিদ্ধান্তের পর গত দুইদিন থেকে ওই সকল প্রার্থীদের সাথে যোগাযোগ করার পর তারা এখন নির্বাচন নিয়ে মুখ খুলতে অপরাগতা প্রকাশ করার পাশাপাশি অনেকেই প্রার্থী হবেন না বলে সরাসরি জানিয়ে দিয়েছেন। দলের ওপর ভর করে চলা জনশুন্য ওইসব প্রার্থী ও তাদের কতিপয় সমর্থকদের সাথে যোগাযোগ করা হলেও তারা নির্বাচনে প্রার্থী হওয়ার ব্যাপারে কোন কথা বলতে রাজি হননি। অথচ গত ২২জানুয়ারি দলীয় বৈঠকে নেয়া সিদ্ধান্তের আগে আগৈলঝাড়া উপজেলা নির্বাচনে অংশগ্রহন করতে ইচ্ছুক প্রার্থীরা মতাসীন দলের মনোয়ন নিতে এবং নিজেদের বিজয়ীর বেশে দেখতে যে লবিং, তদবির শুরু করেছিলেন সে আশায় এখন গুড়ি বালি। সাধারণ ভোটারদের মতে, এবার তারা সদিচ্ছায় তাদের পছন্দের প্রার্থীকে সরাসরি ভোট দিয়ে জয়যুক্ত করতে পারবেন। সরকার ক্ষমতায় থাকলেও জনগনের সাথে যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন সুবিধাভোগী যেসব নেতারা নৌকার প্রার্থী হতে দৌঁড়-ঝাপ শুরু করেছিলেন তাদের মাথায় এখন আকাশ ভেঙ্গে পরেছে। সরকারের সঠিক সিদ্ধান্তকে স্বাগত জানিয়ে দলের ত্যাগী নেতাকর্মী ও সাধারণ ভোটাররা বলেন,অতীতে দলের নেতাকর্মীদের পাশে ছিলেন ও ভবিষ্যতে থাকবেন এমন নেতাকে তারা উপজেলা চেয়ারম্যান নির্বাচিত করবেন।
সূত্রমতে, আগৈলঝাড়া উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে সম্ভাব্য চেয়ারম্যান প্রার্থীর তালিকায় রয়েছেন বর্তমান উপজেলা চেয়ারম্যান, বরিশাল জেলা আওয়ামী লীগের নির্বাহী সদস্য বীর মুক্তিযোদ্ধা আব্দুর রইচ সেরনিয়াবাত ও উপজেলা আওয়অমী লীগের সাধারণ সম্পাদক আবু সালেহ মোঃ লিটন সেরনিয়াবাত। তৃনমুল পর্যায়ের মাঠ জরিপে জনপ্রিয়তায় এগিয়ে রয়েছেন উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আবু সালেহ মোঃ লিটন সেরনিয়াবাত। পুলিশের তালিকায় সম্ভাব্য প্রার্থীদের মধ্যে সাবেক চেয়ারম্যান, বর্তমান ভাইস চেয়ারম্যন, একাধিক ইউপি চেয়ারম্যানসহ আওয়ামী লীগ ও সহযোগী সংগঠনের নেতাদের নাম থাকলেও নৌকা প্রতীক না থাকায় তাদের তাপমাত্রা ক্রমেই পারদের মতো নীচের দিকে নামছে। নির্বাচনে নৌকা প্রতীক থাকছেনা এ ঘোষণার পর সম্ভাব্য অধিকাংশ প্রার্থী এখনই মুখ খুলতে অপরাগতা প্রকাশ করলেও উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আবু সালেহ মোঃ লিটন সেরনিয়াবাত শেষ পর্যন্ত নির্বাচনী মাঠে থাকবেন বলে জানিয়েছেন। সার্বিক বিষয়ে আগৈলঝাড়া উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি সুনীল কুমার বাড়ৈ বলেন, আওয়ামী লীগ একটি বৃহৎ রাজনৈতিক সংগঠন। এখানে একাধিক প্রার্থী হতেই পারেন। তবে নির্বাচনকে শতভাগ গ্রহণযোগ্য করতে দলীয় প্রতীক না থাকা একটি ইতিবাচক দিক জানিয়ে বলেন এবার সরাসরি জনগনের আশা আকাংখার প্রতিফলন ঘটবে।জানা গেছে, নির্বাচন কমিশন আগামী শেষ সপ্তাহ থেকে মে মাসের শেস সপ্তাহের মধ্যে নির্বাচন শেষ করার কথা জানিয়েছেন ইসি সচিব মোঃ আলমগীর। চলতি মাসের শেষ দিকে নির্বাচনের তফসিল ঘোষণার কথা রয়েছে। সূত্র মতে, কয়েকটি ধাপে অনুষ্ঠিত হবে উপজেলা পরিষদ নির্বাচন।

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More News Of This Category