1. domhostregbd@gmail.com : admin :
  2. faruqqepress@gmail.com : znewstv :

কুরবানী আমাদের জন্য নয়…

  • Update Time : Thursday, July 22, 2021
  • 152 Time View

আমরীন মেহবুবা সুলতানাঃ কুরবানীর ঈদ যদি ত্যাগের আর আল্লাহ পাকের সন্তুষ্টি লাভের আশায় হয়ে থাকে। তাহলে এই কুরবানী কেবলমাত্র বিত্তবানদের জন্য নয়। বিত্তবানদের বাসায় কুরবানীর ঈদ মানে হাটের সেরা গরুটা ঘরে আনার সর্বোচ্চ চেষ্টা, আর নিজেদের অর্থবান প্রমাণ করতে পারার এক অনাবিল আনন্দ। আমাদের মতো মানুষদের কাছে, ভালোবাসায় গড়া পশুটির সকল মায়া ত্যাগ করে অর্থের দায়ে তাকে বেছে দেওয়ার নাম হলো কোরবানি। নিজে খেয়ে না খেয়ে তাকে বড় করার এক অক্লান্ত চেষ্টা। বহু ছিদ্র যুক্ত বেড়ার ঘরে আমাদের বসবাস। কিন্তু নিখাদ ভালোবাসা আর মায়া জড়ানো পশুটি যেন আমাদের পরিবারের অংশ। বর্ষার সময় বন্যাতে তেমন কিছু রক্ষা করতে না পারলেও শেষ সম্বল টিকে বাঁচানোর আপ্রাণ চেষ্টা করেছি। আর গরিবের ঘরে শীততো গরমের চেয়েও অধিক যন্ত্রণাদায়ক। শীতে গরম কাপড় জোটে না আর জুটলেও তা দিয়ে পরিবারের সবার শীত নিবারণ হয় না। নিজে কম্বল না নিয়েও অবোলা প্রাণীটার গায়ে দিয়েছি। কারণ আরাম যে আমাদের জন্য নয়, শেষ সম্বলটাকে যে বাঁচাতেই হবে। অনাহারে থাকার কষ্ট কি তা আমরা জানি। ধার করে হলেও তোকে খাইয়েছি, কিন্তু আর যে পারছি না। অর্থের অভাবে খেয়ে পড়ে বাঁচাটা যেন কষ্ট হয়ে গেছে। কুরবানীর ঈদের যেয়ে আর বেশি দিন নাই। তোর প্রতি কেমন জানি আমাদের একটা মায়া পড়ে গেছে। বহু চিন্তাভাবনার পড়ার কোন পথ না পেয়ে, পরিবারের সবার চোখের পানি উপেক্ষা করে আজ তোকে হাটে নিয়ে যাচ্ছে বিক্রির জন্য। পরিশেষে তোকে নিয়ে রাস্তায় নামলাম, ট্রাকে করে ঢাকার উদ্দেশ্যে রওনা দিলাম। মন যে কিছুতেই মানছে না, মনে হচ্ছিল ফিরে যাই। পথিমধ্যে মসুল বৃষ্টি নামল, আমি ছাতা মেলে ধরাতেই তুই আমার আরো কাছে এসে দাঁড়ালি। বহু পুরানো স্মৃতি মনে পড়ে গেল আর মনের অজান্তেই চোখে পানি চলে আসলো। আজও তুই আমাকে এতটাই বিশ্বাস করিস? কিন্তু সেই আমি আজ তোকে অর্থের বিনিময়ে বিক্রি করে দিচ্ছি, ভালোবাসার কুরবানী দিচ্ছি। অপলক দৃষ্টিতে তাকিয়ে রইলাম তোর দিকে। পরিশেষে ঢাকায় এসে কুরবানির হাটে তুললাম তোকে। বহু মানুষ ভালো দামও দিতে চাইলো। কিন্তু মন যে মানছে না। ঈদের আগের দিন চলে আসলো, আর কোন উপায় না পেয়ে ৮৫ হাজার টাকায় তোকে বিক্রি করলাম। তোকে ধরে সেই দিন অনেক কেঁদেছিলাম। বললাম স্যার, আপনার বাসায় গরুটা পৌঁছে দেই, টাকা দিতে লাগবেনা। শেষবারের মতো সেদিন আমি তোকে দেখেছিলাম। বললাম স্যার আমার গরুটা কে একটু দেখে রেখেন। অনেক শখ করে আমি পেলেছি। আর কিছু খাবার কিনে দিয়ে যাই স্যার? স্যার বললেন আমার কুরবানির গরু, আমার নিজের টাকায় কেনা! কি খাওয়াবো তোকে বলতে হবে? মাফ করবেন স্যার এই বলে বাসা থেকে বেরিয়ে আসলাম। গ্রামের উদ্দেশ্যে রওনা দিলাম। পরিশেষে ঈদের দিন তোর কুরবানী হলো। কিন্তু আমরা ভালোবাসার কোরবানি দিয়েছি। গরিবদের নাকি কোরবানি নাই! সামর্থ্য আমাদের নাই, কিন্তু কুরবানী আমরাও দেই….

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More News Of This Category