July 18, 2024, 10:54 am

আগৈলঝাড়ায় নৌকার উঠান বৈঠক রাজিহার ইউনিয়নের রামানন্দেরআঁক জনসমুদ্রে পরিনত

বি এম মনির হোসেন সিনিয়র স্টাফ রিপোর্টারঃ-
  • Update Time : বৃহস্পতিবার, জানুয়ারি ৪, ২০২৪
  • 37 Time View

’৭১এ দেশ স্বাধীনের পরে মাত্র সাড়ে তিন বছর সময়ে বঙ্গবন্ধ যখন যুদ্ধ বিধ্বস্ত বাংলাদেশকে সামনের দিকে এগিয়ে নিয়ে যাচ্ছিলেন ঠিক সেই সময়ে এই দেশের স্বাধীনতা বিরোধীতাকারীরা ৭৫ এর ১৫ আগস্ট পরিবার সদস্যদের সাথে জাতির পিতাকে হত্যা করে। হত্যা করে আমার ছেলে সুকান্ত আবদুল্লাহসহ আমার ভাই-বোনকে। জাতিকে মেধা শুন্য করতে জেলাখানায় জাতীয় চার নেতাকে হত্যা করে। আর এই হত্যাকান্ডোর বিচার করা যাবে না ওরা এমন ‘ইনডিমিটি” কালো আইন পাশ করে জাতির পিতার হত্যাকারীদের বিচার বন্ধ করে বিভিন্ন উচ্চ পদে চাকুরী প্রদান করে। “আজ যারা মুখে গণতন্ত্র আর মানবাধিকারের কথা বলে তারাই একদিন গণতন্ত্র আর মানবাধিকারকে হত্যা করেছ”। তাই গণতন্ত্র আর মানবাধিকার হত্যাকারীদের বিচার করতে হবে। তাই ৭ জানুয়ারি নৌকায় ভোট দিয়ে জাতির পিতার কন্যা শেখ হাসিনাকে প্রধানমন্ত্রী বানাতে হবে। রাজিহার ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ ও সহযোগী সংগঠনের উদ্যোগে বৃহস্পতিবার দুপুরে রাজিহার ইউনিয়নের রামানন্দেরআঁক মাধ্যমিক বিদ্যালয় মাঠে আয়োজিত দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের মতবিনিময় সভায় রাজিহার ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি হরে কৃষ্ণ হালদার এর সভাপতিত্বে উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আবু সালেহ মোঃ লিটন সেরনিয়াবাত এর সঞ্চালনায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে জাতির পিতার ভাগ্নে মন্ত্রী মর্যাদায় পার্বত্য চট্টগ্রাম শান্তি চুক্তি বাস্তবায়ন ও পরীবিক্ষণ কমিটির আহ্বায়ক, মুক্তিযোদ্ধা সংগঠক, বরিশাল জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি, বরিশাল-১ আসনে আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী আলহাজ্ব আবুল হাসানাত আবদুল্লাহ এমপি এসব কথা বলেন।সভায় মন্ত্রী আরও বলেন- আপনারা আমার বাবা শহীদ আব্দুর রব সেরনিয়াবাতকেও ভালবেসেছেন, আমাকেও ভালবাসেন। সেই ভালবাসার কৃতজ্ঞতা প্রকাশের জন্যই আপনাদের কাছে ছুটে এসেছি। আজ আমি যে মন্ত্রীর মর্যাদা ভোগ করে গাড়িতে পতাকা পেয়েছি এর সবকিছুই আপনাদের অবদান। তাই আপনাদের কাছে আমি কৃতজ্ঞ। আমি এলাকার সর্বস্তরের উন্নয়ন কাজ করেছি, তাই ৭ জানুয়ারি আমাকে নৌকা মার্কায় ভোট দিয়ে সরকারের চলমান উন্নয়ন অব্যাহত রেখে শেখ হাসিনাকে পঞ্চম বারের মতো প্রধানমন্ত্রীর আসনে বসাবেন।ওই সভায় মন্ত্রী আরও বলেন- জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের কন্যা শেখ হাসিনা হলেন মানবতার মা। এই মানবতার মা না থাকলে করোনা কালীন সময়ে অর্থ কস্টে থাকা এক কোটি মানুষকে দুই দফায় আড়াই হাজার টাকা করে মোবাইল ফোনে পাঁচ হাজার টাকা করে বিতরণ করতেন না। তিনি ঘর-বাড়ি ছাড়া এগারো লাখ রোহিঙ্গাকে দেশে আশ্রয় দিয়ে তাদের খাবারের ব্যবস্থা করতে না। ওরা পিছনের দরজা দিয়ে এসে ২১ বছর ক্ষমতায় ছিল। এই ২১ বছরে আওয়ামী লীগের ২৬ হাজার নেতা কর্মীকে ওরা হত্যা করেছে। এই ২১ বছরে দক্ষিনাঞ্চলের কোন উন্নয়ন করেনি। আর দুনীতিতে দেশকে চ্যাম্পিয়ন করেছিল ছয় বার। লোকে লোকারণ্য হওয়ায় নির্বাচনী মতবিনিময় সভায় প্রধান অতিথি- জিয়াউর রহমানকে পাকিস্তানের গোয়েন্দা দাবি করে বলেন- জিয়া থাকতেন বেশীরভাগ সময়েই পাকিস্তানে। ছাত্তার এর বাড়ি ছিল মুর্শিদাবাদে, এরশাদের জন্ম কুচবিহার, খালেদার জন্ম জলপাইগুড়ি। তাই তারা পিছনের দরজা দিয়ে ক্ষমতা দখল করলেও দেশের প্রতি তাদের কোন মায়া মমতা ছিল না। দেশের প্রতি দরদ না থাকলে কেউ দেশের জন্য কাজ করে না। বঙ্গবন্ধুর কন্যা এই মাটির সন্তান তাই দেশত্ববোধ আছে বলেই তিনি দেষের জন্য নিরলস কাজ করে যাচ্ছেন। তাই দেশের মানুষের জন্য শেখ হাসিনাকে আবারও প্রধানমন্ত্রী বানাতে নৌকায় ভোট দিন।মতবিনিময় অন্যান্যদের মধ্যে আরও বক্তব্য রাখেন- বরিশাল জেলা আওয়ামী লীগের নির্বাহী সদস্য সেরনিয়াবাত আশিক আবদুল্লাহ,উপজেলা চেয়ারম্যান বীর মুক্তিযোদ্ধা আব্দুর রইচ সেরনিয়াবাত, আগৈলঝাড়া উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি সুনীল কুমার বাড়ৈ, উপজেলা মহিলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও ভাইস চেয়ারম্যান মলিনা রানী রায়, আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি এস.এম. হেমায়েত উদ্দিন, রাজিহার ইউপি চেয়ারম্যান ইলিয়াস তালুকদার, মুক্তিযোদ্ধা কমান্ড কাউন্সিলের সাবেক ডেপুটি কমান্ডার মোঃ আবু তাহের মিয়া, উপজেলা কৃষক লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক আনিচ সেরনিয়াবাত, যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক সহিদুল ইসলাম তালুকদার, ছাত্রলীগের সভাপতি মিন্টু সেরনিয়াবাতসহ স্থানীয় আওয়ামী লীগের নেতৃবৃন্দরা।

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More News Of This Category